gay-lussac-heat-volume
Madhyamik

গে লুসাকের সূত্র (চাপ ও তাপমাত্রার সম্পর্ক)

দশম শ্রেণি – ভৌতবিজ্ঞান | দ্বিতীয় অধ্যায় – গ্যাসের আচরণ (গে লুসাকের চাপ ও তাপমাত্রার সম্পর্ক সূত্র)


বিজ্ঞানী গে লুসাক গ্যাসের আয়তন সংক্রান্ত নানান পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছিলেন। সেগুলির বেশিরভাগই ছিল তার অগ্রজ বৈজ্ঞানিকদের (যেমন, চার্লস, বয়েল বা অ্যাভোগাড্রো) আবিষ্কৃত কাজের উপর বিস্তারিত বিশ্লেষণ। আমরা এর আগে গে লুসাকের গ্যাস-আয়তন সূত্র পড়েছি। আজ আমরা গে লুসাকের আরো একটি সুত্রের কথা আমরা জানবো, এটি চাপ ও তাপমাত্রার সম্পর্ক নামে খ্যাত। তিনি বলেছেন –

কোনো নির্দিষ্ট পরিমাণ গ্যাসের আয়তন স্থির রেখে তার ওপর প্রযুক্ত চাপের পরিবর্তন করলে তার তাপমাত্রাও সমানুপাতে পরিবর্তিত হয়।

আমরা জানি, কোনো গ্যাসের ওপর উপর চাপ বাড়ালে তার আয়তন হ্রাস পাওয়ার সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়।

কিন্তু গ্যাসটিকে আইসোকোরিক (সমআয়তন) অবস্থায় রাখলে গ্যাসটির অণুগুলি ঘনসন্নিবেশনে আসতে অক্ষম হয়। তার পরিবর্তে চাপের ফলে প্রযুক্ত যান্ত্রিক শক্তি তাপগতিবিদ্যার প্রথম সূত্রকে মেনে তাপশক্তিতে রূপান্তরিত হয়, সেই তাপশক্তি গ্যাসটির তাপমাত্রা বৃদ্ধি করে।

JUMP whats-app subscrition

উল্টো দিক দিয়ে বললে তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে বা হ্রাসে গ্যাসের গতিশক্তি বৃদ্ধি বা হ্রাস ঘটে। চার্লসের সূত্রানুসারে গ্যাসের অণুগুলি পাত্রের আভ্যন্তরীণ দেওয়ালে বেশি জোরে বা ধীরে বল প্রয়োগ করে। কিন্তু আয়তন পরিবর্তন না করতে পারার কারণে চাপের পরিবর্তন অনুভূত হয়।

প্রতি 1 ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে বা হ্রাসে ওই গ্যাসের 0 ডিগ্রীতে থাকা চাপের \frac{1}{273} অংশ বৃদ্ধি বা হ্রাস পায়।

Pt =P0 \frac{1+t}{273}

বা, Pt = \frac{P_0}{273} ×T

যেখানে Pt = t ডিগ্রী সেলসিয়াস উষ্ণতায় গ্যাসের চাপ, P0= 0 ডিগ্রী সেলসিয়াস উষ্ণতায় গ্যাসের চাপ, T= t +273 (পরম উষ্ণতা কেলভিন স্কেলে)

এর গাণিতিক বিশ্লেষণ চার্লসের সূত্রের অনুরূপ। এই সুত্রের বিস্তারিত রূপ আমরা একাদশ শ্রেণীতে জানবো।

এই লেখাটি থেকে উপকৃত হলে সবার সাথে শেয়ার করতে ভুলো না।



এছাড়া,পড়াশোনা সংক্রান্ত যেকোনো বিষয়ের আলোচনায় সরাসরি অংশগ্রহন করতে যুক্ত হতে পারেন ‘লেখা-পড়া-শোনা’ ফেসবুক গ্রূপে। এই গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন এখানে।

lekha-pora-shona-facebook-group

Leave a Reply