focal-point
Madhyamik

ফোকাস ও ফোকাস দূরত্ব

ভৌতবিজ্ঞান – দশম শ্রেনি – অধ্যায়: আলো (দ্বিতীয় পর্ব)


আগের পর্বে আমরা লেন্সের অক্ষ, বক্রতা কেন্দ্র, লেন্সের মেরু এবং আলোক কেন্দ্র নিয়ে আলোচনা করেছি।

এই পর্বে আলোচনা করা হবে লেন্সের ফোকাস সম্পর্কে।

লেন্সের ফোকাস দুই প্রকারের হয়, মূখ্য ফোকাস ও গৌণ ফোকাস।

মূখ্য ফোকাস (Principal Focus)

সমান্তরাল আলোক রশ্মি গুচ্ছ যদি লেন্সের উপর আপতিত হয় তবে তারা লেন্সের মাধ্যমে প্রতিসৃত হওয়ার পর যে বিন্দুতে মিলিত হয় সেই বিন্দুটিকেই ফোকাস বলা হয়ে থাকে। তবে একটা বিষয়ে এক্ষেত্রে বলা প্রয়োজন যে, যদি আলোক রশ্মি গুচ্ছ প্রধান অক্ষের (আনুভূমিক) সমান্তরাল হয় তবে ফোকাসে বিন্দুটি আনুভূমিক ‘প্রধান অক্ষের’ সঙ্গে লম্বভাবে থাকা কাল্পনিক তলে ফোকাস বিন্দুটি অবস্থান করবে। এক্ষেত্রে তলটিকে ফোকাস তল বলে অভিহিত করা হয়।

এই চিত্রে মুখ্য ফোকাস এবং ফোকাস তল দেখানো হয়েছে।

গৌণ ফোকাস

এক্ষেত্রে লেন্সের প্রধান আনুভূমিক অক্ষের উপর এমন কোন বিন্দু থেকে আলো নিরগত হয়ে লেন্সের মাধ্যমে প্রতিসৃত হয় এবং প্রতিসরণের পর নির্গত আলোক রশ্মি প্রধান আনুভূমিক অক্ষের সামন্তরাল হয় তবে উক্ত বিন্দুকেই গৌণ ফোকাস বলা হয়ে থাকে।

JUMP whats-app subscrition

তবে উল্লেখ্য যে এক্ষেত্রেও অবতল লেন্সের ক্ষেত্রে কোন বিন্দু থেকে সরাসরি আলো নির্গত হয় না, আলো কেবল মাত্র নির্গত হচ্ছে বলে মনে হয়।

গৌণ ফোকাস

তাহলে এখন প্রশ্ন হল মুখ্য ও গৌণ ফোকাসের মধ্যে তফাৎ কি?

আসলে মুখ্য ফোকাসের ক্ষেত্রে সমান্তরাল আলোকরশ্মি লেন্সের দ্বারা প্রতিসৃত হওয়ার পর একটি বিন্দুতে গিয়ে মিলিত হয় বা মিলিত হচ্ছে বলে মনে হয়। অপরদিকে গৌণ ফোকাসের ক্ষেত্রে কোন বিন্দু উৎস থেকে আলো নির্গত হওয়ার পর তা লেন্স দ্বারা প্রতিসৃত হয়ে সমান্তরাল আলোকরশ্মি গুচ্ছ তৈরী করে।


[আরো পড়ুন – লেন্সের ধারণা]

ফোকাস দূরত্ব (Focal Length)

ফোকাস বিন্দু থেকে লেন্স অবধি দূরত্বকেই বলে ফোকাস দৈর্ঘ্য। ফোকাস দৈর্ঘ্যকে ‘f’ দ্বারা প্রকাশ করা হয়।

ঝ (১-২) এবং ঞ (১-২) চিত্রে  OA দৈর্ঘ্যটিই হল ফোকাস দৈর্ঘ্য।

মনে রাখার বিষয়

উল্লেখ্য যে ‘O’ বিন্দুটি কিন্তু লেন্সের বক্রতল যেখানে আনুভূমিক অক্ষকে ছেদ করে সেই বিন্দু বা মেরু নয়। ‘O’ বিন্দুটি হল আনুভূমিক ও উল্লম্ব প্রধান অক্ষের সংযোজক বিন্দু। এইরূপ নির্ধারণের কারণ হল যে লেন্স গুলি এতই পাতলা যে উহাদের মেরু আর ‘O’ বিন্দুর মধ্যে তফাৎ ভীষন নগণ্য।


[আরো পড়ুন – জীবন বিজ্ঞান | দ্বিতীয় অধ্যায় – জীবনের প্রবাহমানতা (কোশ বিভাজন)]

কোন লেন্সের বক্রতা ব্যাসার্ধ (R) ও ফোকাসের দূরত্বের মধ্যে সম্পর্ক

কোন লেন্সের বক্রতা ব্যাসার্ধের দৈর্ঘ্য (R) ঐ লেন্সের ফোকাসে দৈর্ঘ্যের (f) দ্বিগুণ হয়।

অর্থাৎ, 2f = R

অথবা, f = \frac{R}{2}

পরবর্তী পর্বে আমরা লেন্স ও প্রতিবিম্ব নিয়ে আলোচনা করবো।

এই লেখাটি থেকে উপকৃত হলে সবার সাথে শেয়ার করতে ভুলো না।



এছাড়া,পড়াশোনা সংক্রান্ত যেকোনো বিষয়ের আলোচনায় সরাসরি অংশগ্রহন করতে যুক্ত হতে পারেন ‘লেখা-পড়া-শোনা’ ফেসবুক গ্রূপে। এই গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন এখানে।

lekha-pora-shona-facebook-group

Dr. Mrinal Seal
ডঃ মৃণাল শীল সাঁতরাগাছি উচ্চ বিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যার একজন জনপ্রিয় শিক্ষক। পড়াশোনার পাশাপাশি ঘুরে বেড়াতে ও নানান ধরণের নতুন নতুন খাবার খেতেও পছন্দ করেন ডঃ শীল।

Leave a Reply