taper-poricolon-updated
WB-Class-8

তাপের পরিচলন

শ্রেণিঃ অষ্টম | বিষয়: বিজ্ঞান । অধ্যায় – তাপ(পঞ্চম পর্ব)


আগের পর্বে আমরা জেনেছি তাপের পরিবহন সম্পর্কে। এই পর্বে আমরা তাপের পরিচলন সম্পর্কে আলোচনা করবো।

শুরুতেই আমরা পরিচলনের সংজ্ঞাটি বুঝে নেব।

পরিচলন (Convection) কাকে বলে?

যে প্রণালীতে পদার্থের উত্তপ্ত অণুগুলি নিজেরাই উষ্ণতর অংশ থেকে শীতলতর অংশে গিয়ে তাপ সঞ্চালন করে তাকে পরিচলন বলা হয়।

তাপ পরিচলনের বৈশিষ্ট্য

i) পদার্থের অণুগুলি উষ্ণতর অংশ থেকে শীতলতর অংশে গমন করে।

ii) সাধারণত তরল ও গ্যাসের ক্ষেত্রে তাপ সঞ্চালন পরিচলন পদ্ধতিতে হয়।

iii) এই পদ্ধতিতে তাপ যে মাধ্যম অবলম্বন করে সেই মাধ্যমকে উত্তপ্ত করে।

iv) এটি বিকিরণ অপেক্ষা মন্থর পদ্ধতি।

v) এই পদ্ধতিতে তাপ সরলরেখা বা বক্রপথে সঞ্চালিত হতে পারে।

vi) পরিচলনের ফলে পরিচলন স্রোত সৃষ্টি হয়।

কোন পাত্রে তরল নিয়ে পাত্রের নীচের অংশে তাপ দিলে নীচের তরল উত্তপ্ত হয় এবং তার আয়তন প্রসারিত হয়। কিন্তু যেহেতু ভর অপরিবর্তিত থাকে, তাই আয়তন বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে তরলের ঘনত্ব হ্রাস পায়। ফলে ওই উত্তপ্ত তরল হালকা হয়ে যায় ও উপরে উঠে আসে। ফলে একটি উত্তপ্ত পরিচলন স্রোতের সৃষ্টি হয়। এই সময় উপর থেকে অপেক্ষাকৃত শীতল তরল ও ভারী তরল নীচে নেমে আসে ওই স্থান পূর্ণ করে।

একইভাবে বায়ুর ক্ষেত্রেও পরিচলন স্রোত সৃষ্টি হয়। এই পরিচলন প্রক্রিয়াকে কাজে লাগিয়ে শীতকালে গরম বাতাসের সাহায্যে ঘর গরম করা হয়।

প্রকৃতিতে যে বায়ুপ্রবাহ ঘটে তা এই পরিচলন প্রক্রিয়ায় ঘটে।

প্রকৃতিতে বায়ুর পরিচলন স্রোতের জন্য স্থলবায়ু ও সমুদ্র বায়ু সৃষ্টি হয়, যা সমুদ্রের নিকটবর্তী অঞ্চলে দেখা যায়।

সমুদ্র বায়ু কাকে বলে?

জলের তুলনায় স্থলের আপেক্ষিক তাপ কম এবং তাপ শোষণ ক্ষমতা বেশি। তাই দিনের বেলা সূর্যের তাপে জলের তুলনায় স্থলভাগ বেশি উত্তপ্ত হয়। ফলে উত্তপ্ত স্থলসংলগ্ন বাতাস গরম হয়ে যায় এবং তা উপরে উঠে যায়।

দিনের বেলায় সমুদ্রবায়ুর প্রবাহ

এই সৃষ্ট শূন্যস্থান পূরণ করার জন্য তখন সমুদ্রের দিক থেকে আসা বাতাস স্থলভাগের দিকে প্রবাহিত হয়, যা সমুদ্র বায়ু নামে পরিচিত।

সমুদ্র বায়ু দিনের বেলায় প্রবাহিত হয় এবং সন্ধ্যার দিকে তার প্রাবল্য সবচেয়ে বেশি হয়।

স্থলবায়ু কাকে বলে?

অন্যদিকে স্থলবায়ু সৃষ্টি হয় রাতের বেলা। রাতে তাপ বিকিরণ করে স্থলভাগ দ্রুত ঠাণ্ডা হয়ে যায়। কিন্তু জলভাগ অতদ্রুত ঠাণ্ডা হতে পারে না ফলে সমুদ্রের উপরের অপেক্ষাকৃত গরম বাতাস উপরে উঠে যায়, এবং স্থলভাগ থেকে অপেক্ষাকৃত শীতল বাতাস সমুদ্রের দিকে প্রবাহিত হয়। একে স্থলবায়ু বলে।

স্থলবায়ু রাত্রিকালে প্রবাহিত হয় এবং ভোরের দিকে এর প্রাবল্য সর্বাধিক হয়।

রাতের বেলায় স্থলবায়ুর প্রবাহ

জ্বলন্ত উনুনের ঠিক উপরে কিছু দূরে হাত রাখলে আমরা যতটা গুরম বোধ করি, উনুনের পাশে হাত রাখলে তত গরম অনুভব হয় না। এর কারণ উনুনের উপরের বায়ু উত্তপ্ত হয়ে উপরে উঠে যায় এবং চারপাশ থেকে শীতল বায়ু এসে সেই স্থান দখল করে।
ফলে বায়ুতে পরিচলন স্রোত সৃষ্টি হয়।


অষ্টম শ্রেণির অন্য বিভাগ – বাংলা | ইংরেজি | গণিত | বিজ্ঞান

এই স্রোতের কারণে বায়ু দ্রুত উত্তপ্ত হয়ে উপর দিকে ওঠে, তাই উনুনের উপর দিকে হাত রাখলে গরম বোধ হয়। পরিচলন প্রক্রিয়ায় তাপ উপর দিকে সঞ্চালিত হয়।

উনুনের পাশের দিকে বিশেষ তাপ সঞ্চালন পরিবহন ও বিকিরণ প্রক্রিয়ার উপর নির্ভর করে। কিন্তু বায়ু তাপের কুপরিবাহী হওয়ার কারণে পরিবহন প্রণালীতে পাশের দিকে বিশেষ চাপ সঞ্চালন ঘটে না। যা তাপ সঞ্চালিত হয় তা বিকিরণ পদ্ধতির জন্য ঘটে।

আবার পরিচলন প্রক্রিয়ায় সৃষ্ট পরিচলন স্রোতের কারণে উনুনের পাশের তাপমাত্রা অনেক হ্রাস পায়। এই কারণে উনুনের উপর দিক অপেক্ষা পাশের দিকে হাত রাখলে কম উত্তাপ অনুভব হয়।

পর্ব সমাপ্ত। পরবর্তী পর্ব → তাপের বিকিরণ

এই লেখাটির সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। বিনা অনুমতিতে এই লেখা, অডিও, ভিডিও বা অন্য ভাবে কোন মাধ্যমে প্রকাশ করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


লেখিকা পরিচিতিঃ

বিজ্ঞান স্নাতক এবং কম্পিউটার বিজ্ঞানে উচ্চ শিক্ষিতা নন্দিতা বসুর পেশা শিক্ষকতা।তিনি বই পড়তে বড় ভালোবাসেন। কাজের ফাঁকে, অবসরে, বাসে ট্রামে তো বটেই, শোনা যায় তিনি নাকি ঘুমিয়ে ঘুমিয়েও বই পড়তে পারেন।

এই লেখাটি থেকে উপকৃত হলে সবার সাথে শেয়ার করতে ভুলো না।



JumpMagazine.in এর নিয়মিত আপডেট পাবার জন্য –