nuclear-power
Madhyamik

নিউক্লিয় শক্তি

ভৌতবিজ্ঞান – দশম শ্রেনি – অধ্যায়: পরমাণুর নিউক্লিয়াস (তৃতীয় পর্ব)


আমরা তেজস্ক্রিয়তার ব্যবহারের ক্ষেত্রে জেনেছি  যে তেজস্ক্রিয় বিভাজনের মাধ্যমে শক্তি উৎপাদিত হয়।

প্রকৃতপক্ষে কেবল তেজস্ক্রিয় বিভাজন নয় যে কোন ভাবেই কোন পরমাণুর নিউক্লিয়াস ভেঙ্গে যদি নতুন কোন নিউক্লিয়াস গঠিত হয় তবে কিছু পরিমাণ শক্তিও উৎপন্ন হয়। এই শক্তিকে নিউক্লিয় শক্তি বলে।

einstein

নিউক্লিয় শক্তি উৎপাদনের কারণ ব্যাখ্যা করেন বিজ্ঞানী আইনস্টাইন। তাঁর আবিষ্কৃত সূত্রটি হল ভর ও শক্তির তুল্যতা সূত্র।

এটির গাণিতিক রূপ হলঃ E = mc2

এক্ষেত্রে, c হল আলোকের গতিবেগ যার মান হল 3X108 m/s

‘m’ হল ভর বিচ্যুতি, অর্থাৎ প্রাথমিক নিউক্লিয়াসের ভর ও অন্তিম নিউক্লিয়াসের ভরের বিয়োগফল।

এবং ‘E’ হল উৎপন্ন শক্তির পরিমাপ।

নিউক্লিয় বিভাজন কি বিপুল পরিমাণ শক্তি উৎপাদন করতে পারে তা আমরা একটি ছোট উদাহরণ থেকেই বুঝতে পারব।

ধরে নিলাম, কোন একটি নিউক্লিয়াস ভেঙ্গে অপর একটি নিউক্লিয়াস গঠন করলে তাদের ভর বিচ্যুতির পরিমাণ দাঁড়ায় 1 পিকোগ্রাম বা 10-12 গ্রাম।

∴ 10-12 গ্রাম = \frac{10^{-12}}{1000} kg

= 10-15 kg

সুতরাং এই ভর শক্তিতে পরিণত হলে উৎপন্ন শক্তির পরিমাণ দাঁড়াবেঃ

E = 10-15 × (3  × 108)2

= 10-15 × 9 × 1016

=  9 × 10 জুল = 90 জুল

সুতরাং দেখা যাচ্ছে যে সামান্য পরিমাণ ভরই শক্তিতে রূপান্তরিত হলে কি বিপুল পরিমাণ শক্তি উৎপাদন করতে পারে।

JUMP whats-app subscrition

নিউক্লিয় বিভাজন বিক্রিয়া কি?

জার্মান বিজ্ঞানী অটোহান এবং স্ট্রাসম্যান প্রথম দেখিয়েছিলেন যে ইউরেনিয়াম (92^{u^{235}}) পরমাণুর নিউক্লিয়াসকে একটি ধীর গতির নিউট্রন দ্বারা আঘাত করলে যেটি ভেঙ্গে দুটি নতুন মৌলের নিউক্লিয়াস গঠন করে ( নিচের বিক্রিয়াটি দ্রষ্টব্য)।

92^{u^{235}} + 0^{n^{1}} \rightarrow 56^{Ba^{141}} + 36^{Kr^{92}} + 3 0^{n^{1}}

PopularIcyBronco

এখন, উপরের বক্রিয়াটি থেকে দেখা যায় যে বিক্রিয়ক পদার্থগুলির নিউক্লিয়াসের মোট ভরের চেয়ে বিক্তিয়াজাত পাদার্থগুলির নিউক্লীয়াসের মোট ভর কিছুটা কম


[আরো পড়ুন – নিউক্লিও শৃঙ্খল বিক্রিয়া]

এই ভর ঘাটতিই পূর্বোক্ত আইনস্টাইনের সমীকরণ অনুসারে শক্তিতে রূপান্তরিত হয়, যার পরিমাণ প্রায় 200Mev

মনে রাখতে হবে –

MeV হল Mega Electron Volt যা শক্তির পরিমাপের একটি একক।

1MeV = 106ev = 1.6 × 10-13 Joule

এই নিউক্লিয় বিভাজন প্রক্রিয়ায় হিসাব করে দেখা গেছে যে প্রায় 1kg ইউরেনিয়াম থেকে যে পরিমাণ শক্তি উৎপাদন সম্ভব তা সাধারণ কয়লা জ্বালানীর মাধ্যমে করতে গেলে প্রায় 10000 টন কয়লা পোড়াতে হবে

এই লেখাটি থেকে উপকৃত হলে সবার সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল।



এছাড়া,পড়াশোনা সংক্রান্ত যেকোনো বিষয়ের আলোচনায় সরাসরি অংশগ্রহন করতে যুক্ত হতে পারেন ‘লেখা-পড়া-শোনা’ ফেসবুক গ্রূপে। এই গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন এখানে।

lekha-pora-shona-facebook-group

Dr. Mrinal Seal
ডঃ মৃণাল শীল সাঁতরাগাছি উচ্চ বিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যার একজন জনপ্রিয় শিক্ষক। পড়াশোনার পাশাপাশি ঘুরে বেড়াতে ও নানান ধরণের নতুন নতুন খাবার খেতেও পছন্দ করেন ডঃ শীল।

Leave a Reply